ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ  বুধবার ● ১৬ জুন ২০২১ ● ২ আষাঢ় ১৪২৮
ই-পেপার   বুধবার ● ১৬ জুন ২০২১
শিরোনাম: পরীমনির বিরুদ্ধে ভাঙচুরের অভিযোগ গুলশান অল কমিউনিটি ক্লাবের, পরিদর্শনে যাবে পুলিশ       বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে স্থায়ী ক্যাম্পাসে নিতে ব্যর্থ মন্ত্রণালয়       বাজেট পাসের পরেই এমপিওর আবেদন       চীনকে এক হাত নিলেন জি-৭ নেতারা, কোভিডের উৎসের তদন্ত দাবি       নেতানিয়াহু যুগের অবসান, নতুন সরকারে থাকছে আরব দলও       ভারতীয় সাংস্কৃতিক সম্পর্ক পরিষদের ভিডিও ব্লগিংয়ে তৃতীয় বাংলাদেশের মনসিফ        ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টাকারীর নাম জানালেন পরীমনি      
পদ্মায় স্পিডবোট দুর্ঘটনা: চালক ছিলেন নেশাগ্রস্ত
নিউজ ডেস্ক
Published : Friday, 7 May, 2021 at 12:21 AM

গত ৩ মে ভোরে ঘাটে নোঙর করে রাখা বালুবোঝাই বাল্কহেডের সঙ্গে শিমুলিয়া থেকে আসা একটি দ্রুতগতির স্পিডবোটের ধাক্কা লাগলে ঘটনাস্থলেই ২৬ জনের মৃত্যু হয়।

মাদারীপুরে যে স্পিডবোটটি দুর্ঘটনায় পড়ে ২৬ যাত্রী নিহত হয়েছেন তার চালক নেশাগ্রস্ত ছিলেন বলে জানিয়েছে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডা. শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ।

তিনি জানান, যাত্রী পরিবহনের আগে চালক শাহ আলম গাঁজা ও ইয়াবা সেবন করেছিলেন।

চালক শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় ডোপ টেস্টের নমুনায় এ তথ্য নিশ্চিত হয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

দুর্ঘটনায় প্রাণে বেঁচে যাওয়া সেই চালকও সেদিন গুরুতর আহত হন। তাকেসহ আরো পাঁচজনকে উদ্ধারের পর তাদেরকে ভর্তি করা হয় শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে চালক শাহ আলমকে নেয়া হয় ফরিদপুরের ওই হাসপাতালে। পরে আনা হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

ডা. শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ বলেন, ‘দুর্ঘটনার পর জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চালক শাহ আলমের ডোপ টেস্ট করাতে বলেন। পরে আমরা ঢাকা থেকে কিট এনে ডোপ টেস্ট করি। ডোপ টেস্টে তার পজিটিভ এসেছে। নমুনায় গাঁজা ও ইয়াবার অস্তিত্ব মিলেছে। অর্থ্যাৎ স্পিডবোটটি চালানোর সময় তিনি মাদকাসক্ত ছিলেন।’

গত ৩ মে ভোরে ঘাটে নোঙর করে রাখা বালুবোঝাই বাল্কহেডের সঙ্গে শিমুলিয়া থেকে আসা একটি দ্রুতগতির স্পিডবোটের ধাক্কা লাগলে ঘটনাস্থলেই ২৬ জনের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় জেলা প্রশাসন ও নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

বুধবার জেলা প্রশাসনের ছয় সদস্যের তদন্ত কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের তদন্ত দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

প্রাণঘাতি সেই দুর্ঘটনার পর ওই এলাকায় স্পিডবোট পরিচালনার ক্ষেত্রে নানা অনিয়ম ও অসঙ্গতি ধরা পড়ে। জানা যায়, দুর্ঘটনায় পড়া নৌযানটির কোনো অনুমোদন ছিল না। চালকেরও লাইসেন্স ছিল না।

ওই রুটে চলা বেশিরভাগ স্পিডবোটেরই একই চিত্র বলে দুর্ঘটনার পর জানিয়েছেন শিমুলিয়ার নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী পরিচালক শাহাদাত হোসেন।

আজকালের খবর/এএইস


সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : হাউস নং ৩৯ (৫ম তলা), রোড নং ১৭/এ, ব্লক: ই, বনানী, ঢাকা-১২১৩।
ফোন: +৮৮-০২-৪৮৮১১৮৩১-৪, বিজ্ঞাপন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সার্কুলেশন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮
ই-মেইল : বার্তা- [email protected] বিজ্ঞাপন- [email protected]
দৈনিক আজকালের খবর লিমিটেডের পক্ষে গোলাম মোস্তফা কর্তৃক বাড়ি নং-৫৯, রোড নং-২৭, ব্লক-কে, বনানী, ঢাকা-১২১৩ থেকে প্রকাশিত ও সোনালী প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড (২/১/এ আরামবাগ), ইডেন কমপ্লেক্স, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.com, www.eajkalerkhobor.com