ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ  সোমবার ● ১৭ মে ২০২১ ● ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
ই-পেপার  সোমবার ● ১৭ মে ২০২১
শিরোনাম: প্রাথমিক স্কুলের ছুটি বাড়ল ২৯ মে পর্যন্ত       পদত্যাগ করলেন ডায়ানার সাক্ষাৎকার নেওয়া বিবিসির সেই সাংবাদিক       শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে ‘হাসিনা: এ ডটার’স টেল’       মহাকাশে সিনেমার শুটিং: প্রতিযোগিতা আমেরিকা-রাশিয়ার       গাজায় আল জাজিরা-এপির কার্যালয় ভবন গুঁড়িয়ে দিল ইসরায়েল       শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ২৩ মে খুলছে না       তিন দিনের রিমান্ডে জামায়াত নেতা শাহজাহান চৌধুরী      
মা ও শিশু স্বাস্থ্য সুরক্ষায় কক্সবাজারের হোপ হসপিটাল
তাহজীবুল আনাম, কক্সবাজার
Published : Monday, 3 May, 2021 at 7:22 PM

ইচ্ছে থাকলে যে উপায় হয়; তা আবারো প্রমাণ করলেন কক্সবাজারের সন্তান আমেরিকা প্রবাসী ড. ইফতেখার মাহমুদ মিনার। গর্ভবতী মা ও শিশু মূত্যুর হার রোধ করার লক্ষ্যে ১৯৯৯ সালে সম্পূর্ণ নিজস্ব অর্থায়নে কক্সবাজারের রামু চেইন্দায় ছোট্ট পরিসরে ৫০শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করেন। যা পরবর্তীতে হোপ হসপিটাল ( মা ও শিশু ) নামে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। এই হসপিটালে হত দরিদ্র পিছিয়ে পড়া অনগ্রসর জনগোষ্ঠীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হচ্ছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, সাধারণ রোগীদের ক্ষেত্রে নরমাল ডেলিভারিতে ২ হাজার টাকা, অপারেশন ডেলিভারিতে ৯ হাজার ধার্য্য রয়েছে। তবে যারা এই ধার্য্যকৃত টাকা পরিশোধে অপারগ তাদের ক্ষেত্রে ছাড় ব্যবস্থাও রয়েছে। আর তালু কাটা, ঠোঁট, ও ফিষ্টুলা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রধান করা হচ্ছে হোপ হসপিটালে।

সেদিন দেখা স্বপ্ন আজকের এই দিনে কিছুটা হলে ও পূরণ হয়েছে বলে মনে করেন এই প্রতিষ্টানের প্রতিষ্টাতা চেয়ারম্যান ড.ইফতেখার মাহমুদ মিনার। তিনি বলেন প্রথমে নিজস্ব অর্থায়নে এই হসপিটালের যাত্রা শুরু হলে ও পরবর্তীতে দেশী-বিদেশী অর্থায়নে এই প্রতিষ্ঠান একটি অলাভজনক স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়।

হোপ হসপিটালের কান্ট্রি ডিরেক্টর একেএম জাহেদুজ্জামান জানিয়েছেন, এই প্রতিষ্ঠানের পরিধি ক্রমাগত বেড়ে মহীরুহে পরিণত হয়েছে। ৫০ বেড়ের করোনা আইসোলেন সেন্টার খোলা হয়েছে কক্সবাজারের উখিয়ায়। এর বাইরে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর জন্য ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল চলমান গত তিন বছর ধরে।

এদিকে জেলার উপকূল সহ প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিশেষ করে কুতুবদিয়া দ্বীপ, মহেশখালী, পেকুয়া, চকরিয়া, রামু, উখিয়া, টেকনাফ, ঈদগাহ ও কক্সবাজার সদরে ৫৫ টি মাদার বার্থ সেন্টার চালু রয়েছে হোপ হসপিটালের তত্বাবধানে। প্রত্যেকটি সেন্টারে মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা হয়েছে। প্রতিটি সেন্টারে একজন পেরামেডিক্যাল চিকিৎসক ও নার্স কর্মরত রয়েছেন। বিশেষ করে গর্ভবতী মায়েদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় বিশেষ ভূমিকা রাখছেন এ বার্থ সেন্টারগুলো। এছাড়া হোপ হসপিটালের তত্বাবধানে তিন বছর মেয়াদি মিডওয়ে বা নার্স প্রশিক্ষণ কর্মশালা খোলা রয়েছে। প্রতিটি ব্যাচে ৩০ জন করে মিডওয়ে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের ৭০০ মহিলাকে ধাত্রী প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। হোপ হসপিটালের তত্বাবধানে পুরো জেলায় ৬০০ কর্মকর্তা কর্মচারী রয়েছেন। ডাক্তারের সংখ্যা ৫০ জন এর মধ্যে শিশু ও গাইনী বিশেষজ্ঞ রয়েছে একাধিক। নার্সের সংখ্যা ৮০ জন। ৫ টি এম্বুলেন্স ৬ জন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ও এনেস্থিসিয়া এক্সপার্ট রয়েছে ৬ জন। বিশ্ব ব্যাংক ইউএনডিপির অর্থায়ন রয়েছে হোপ ফাউন্ডেশন বা হোপ হসপিটালের সামগ্রিক কর্মকাণ্ডে। কক্সবাজার জেলা ছাড়াও চট্টগ্রাম সহ আরো ১১টি জেলার গর্ভবতী মা ও শিশুদের চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিম পরিচালনার মাধ্যমে।

কান্ট্রি ডিরেক্টর একেএম জাহেদুজ্জামান আরো জানান, এ প্রতিষ্টানের কর্নধার ও প্রতিষ্টাতা কক্সবাজারের সন্তান আমেরিকান প্রবাসী ড. ইফতেখার মাহমুদ মিনারের স্বপ্ন অন্তত কক্সবাজার জেলার প্রত্যন্ত গ্রামে কোনো গর্ভবতী মা যাতে প্রসব বেদনায় মৃত্যুবরণ না করে সে জন্য বার্থ সেন্টারগুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। তিনি চান হোপ হসপিটালকে আরো বৃহত্তর পরিসরে তৈরি করে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে।

হোপ হসপিটালের শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. নিম্ময় বিশ্বাস জানান, তিনি এ প্রতিষ্টানে দীর্ঘ নয় বছর ধরে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। তার জানামতে কোন রোগী বিনা চিকিৎসায় এ হাসপাতাল থেকে যেতে পারেনি। এবং চিকিৎসার ক্ষেত্রে যেকোনো ধরনের অভিযোগ অবহেলা হোপ হসপিটাল কতৃপক্ষ অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করেন। তাই অর্থের অভাবে কোনো চিকিৎসা এ প্রতিষ্ঠানে থেমে থাকেনি। হতদরিদ্রদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ছাড়াও ফ্রী এম্বুলেন্স সার্ভিস দেওয়া হয়। এছাড়াও মিডওয়ে বা নার্স প্রশিক্ষনার্থীরা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। এবং থাকা খাওয়ার ব্যবস্থাও ফ্রী বলে জানান তিনি।

একে


সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : হাউস নং ৩৯ (৫ম তলা), রোড নং ১৭/এ, ব্লক: ই, বনানী, ঢাকা-১২১৩।
ফোন: +৮৮-০২-৪৮৮১১৮৩১-৪, বিজ্ঞাপন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সার্কুলেশন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮
ই-মেইল : বার্তা- [email protected] বিজ্ঞাপন- [email protected]
দৈনিক আজকালের খবর লিমিটেডের পক্ষে গোলাম মোস্তফা কর্তৃক বাড়ি নং-৫৯, রোড নং-২৭, ব্লক-কে, বনানী, ঢাকা-১২১৩ থেকে প্রকাশিত ও সোনালী প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড (২/১/এ আরামবাগ), ইডেন কমপ্লেক্স, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.com, www.eajkalerkhobor.com