ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ  বুধবার ● ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ● ১৫ আশ্বিন ১৪২৭
ই-পেপার   বুধবার ● ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০
শিরোনাম: ভারতীয় করোনা ভ্যাকসিনের ট্রায়াল ও উৎপাদন বাংলাদেশে        পাইকারি বাজারে চালের দাম বেঁধে দিল সরকার       কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ আর নেই       দায়িত্ব নিন, চিহ্নিত বেওয়ারিশ কুকুর স্থানান্তর করবো না: তাপস        পাকিস্তান-মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু       সাবেক প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমসহ ৫ জনের মামলা খারিজ       করোনায় আরও ২৬ জনের মৃত্যু      
ফের বাড়ছে পানি, বন্যার আশঙ্কা নাকচ পাউবোর
নিজস্ব প্রতিবেদক
Published : Wednesday, 16 September, 2020 at 8:14 PM

আবহওয়া অধিদপ্তর আগেই পূর্বাভাসে জানিয়েছিল সেপ্টেম্বরে আরেকদফা বন্যা হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সেময় মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই পূর্বাভাসের ভিত্তিতে আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছিলেন, সেপ্টেম্বরে বন্যা হলে তা দীর্ঘস্থায়ী হয়। সেজন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতিও নিয়ে রাখতে বলেছিলেন তিনি।  এই আশঙ্কার কিছুটা প্রতিফলন দেখা দিয়েছে। 

উজানের ঢলে কুড়িগ্রামে ধরলা, তিস্তা ও ব্রহ্মপুত্রের পানি বাড়ছে। এতে করে নদ-নদী অববাহিকার নিম্নাঞ্চল ফের প্লাবিত হতে শুরু করেছে। ধরলার পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। আগামী ৪৮ ঘণ্টায় পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকার পূর্বাভাস দিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। তবে তারা বন্যার আশঙ্কা নাকচ করে দিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)। 
আমাদের কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি ইউসুফ আলমগীর জানান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ জানিয়েছে, বুধবার সকাল ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ধরলা নদীর পানি ৩৮ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে সেতু পয়েন্টে বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ব্রহ্মপুত্রের পানি নুনখাওয়া পয়েন্টে ৩০ সেন্টিমিটার এবং চিলমারী পয়েন্টে ১৩ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়েছে।

অন্যদিকে তিস্তার পানি কাউনিয়া পয়েন্টে আট সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়েছে। পাশাপাশি তিস্তা অববাহিকায় নদী ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। তিস্তার ভাঙনে রাজারহাট ও উলিপুর উপজেলার উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে শতাধিক পরিবার ভিটেমাটি হারিয়ে বাস্তুহারা জীবন যাপন করছেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

কুড়িগ্রাম রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র সরকার জানান, মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে বুধবার দুপুর থেকে জেলায় ভারী বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার পর্যন্ত আকাশে মেঘের উপস্থিতিসহ বৃষ্টিপাত থাকতে পারে। এরপর বৃষ্টিপাত কমে আবহাওয়া পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে পারে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম জানান, গত দুই দিন ভারতে ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ায় উজানের ঢলে জেলার নদ-নদীর পানি বাড়তে শুরু করেছে। আগামী দুই দিন পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে। তবে ব্রহ্মপুত্রের পানি এখনো বিপদসীমার এক মিটার নিচে থাকায় নদ-নদীর পানি দ্রুত নেমে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে এই নির্বাহী প্রকৌশলী বলেন, ‘নদ-নদী অববাহিকার কিছু চরসহ নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হলেও জেলায় সার্বিকভাবে বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টির পূর্বাভাস নেই। আশা করছি দুই-একদিনের মধ্যে বৃষ্টিপাত কমে সার্বিক পরিস্থিতির উন্নতি ঘটবে।’

তিস্তা অববাহিকায় ভাঙন প্রতিরোধে পানি উন্নয়ন বোর্ড কাজ করছে বলেও জানান তিনি। 

আজকালের খবর/এএইস



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : হাউস নং ৩৯ (৫ম তলা), রোড নং ১৭/এ, ব্লক: ই, বনানী, ঢাকা-১২১৩।
ফোন: +৮৮-০২-৪৮৮১১৮৩১-৪, বিজ্ঞাপন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সার্কুলেশন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮
ই-মেইল : বার্তা- [email protected] বিজ্ঞাপন- [email protected]
দৈনিক আজকালের খবর লিমিটেডের পক্ষে গোলাম মোস্তফা কর্তৃক বাড়ি নং-৫৯, রোড নং-২৭, ব্লক-কে, বনানী, ঢাকা-১২১৩ থেকে প্রকাশিত ও সোনালী প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড (২/১/এ আরামবাগ), ইডেন কমপ্লেক্স, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.com, www.eajkalerkhobor.com