ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ  সোমবার ● ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ● ৬ আশ্বিন ১৪২৭
ই-পেপার  সোমবার ● ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০
শিরোনাম: ১৬ অক্টোবর থেকে সিনেমা হল খুলবে       আরো ৪০ মৃত্যু, শনাক্ত ১,৭০৫, পরীক্ষা ১৩,০৫৩       সেই গাড়িচালক ১৪ দিনের রিমান্ডে       বাংলাদেশ ও ভারতের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বহুমাত্রিক : কাদের       জোহর ও মাগরিবে মাস্ক পরে মসজিদে যাওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর       ভিপি নুরের বিরুদ্ধে ঢাবি ছাত্রীর ধর্ষণ মামলা       হ্যান্ডসেট বৈধ না হলে নেটওয়ার্ক বিচ্ছিন্ন করা হবে : বিটিআরসি      
আর্সেনিকমুক্ত পানি পাচ্ছে ২ হাজার পরিবার
নজরুল ইসলাম, শার্শা
Published : Wednesday, 16 September, 2020 at 3:58 PM

যশোরের শার্শা উপজেলা সদর ইউনিয়নে আর্সেনিকমুক্ত বিশুদ্ধ পানির সাপ্লাই পেতে শুরু করেছে সাধারণ মানুষ। মূলত শার্শা ইউনিয়নের নাভারন বাজারের দুই হাজার পরিবারের বাড়িতে পাইপ লাইনের মাধ্যমে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে এ পানি। 

শার্শা উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল হক মঞ্জু বলেন, পানি নিরাপদ না হলে স্বাস্থ্য ভালো থাকে না। স্বাস্থ্য ভালো না থাকলে উন্নয়ন টেকসই হয় না। তাই নিরাপদ পানি পানের সুযোগ তৈরি করা, গুণগতমান, সবার জন্য সহজলভ্য ও টেকসই ব্যবস্থা হিসেবে এই প্রকল্প চালু করা হয়েছে। পানি সরবরাহ কার্যক্রম জোরদারে ইউনিসেফ সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, শার্শা উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় চার কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি তৈরি করা হয়। এক লাখ লিটার ধারণক্ষমতা সম্পন্ন ট্রাংকটিতে গভীর নলকূপের মাধ্যমে পানি তোলা হয়। এই পানি আর্সেনিক ও আয়রনমুক্ত। 

শার্শা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহারব হোসেন বলেন, সাধারণ মানুষ যাতে বিশুদ্ধ পানি পেতে পারে সেজন্যই সরকারিভাবে এই প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়। বিভাগীয় শহর বা মহানগরীর মানুষের কাছে সাপ্লাই পানি সম্পর্কে একটা ধারণা থাকলেও মফস্বল এলাকায় এই ধারণা একবাইরেই ছিল না। ফলে প্রকল্পের প্রথম পর্যায়ে কিছুটা অসুবিধা হলেও এখন মানুষ সচেতন হয়েছে; সুফল পেতে শুরু করেছে। 

শার্শা ইউনিয়ন পরিষদের ব্যবস্থাপনায় দুটি ধাপে মাসিক ১৫০ অথবা ১৯০ টাকার বিনিময়ে প্রতিটি পরিবারকে এই পানি সরবরাহ করা হয়ে থাকে। এ টাকা দিয়েই প্রকল্পের সকল ব্যায় মেটানো ও তদারককারিদের বেতনভাতা দেওয়া হয় বলে জানান সোহারব। 

শার্শা ইউনিয়নের কজিরবেড় গ্রাম ঘুরে দেখা গেছে,  লিটন হোসেন, সাইফুল ইসলাম, আনারুল ইসলাম, টুটুল হোসেন, মিজানুর রহমানের মত অন্তত ১৫০পরিবার এই বিশুদ্ধ আর্সেনিকমুক্ত পানি ব্যবহার করছেন।

পানি ব্যবহারকারী সেলিম রেজা বলেন, দিনে দুইবার লাইনে পানি আসে। সকাল ৭টায় একবার, দুপুর ২টায় আসে দ্বিতীয়বার। এতেই আমাদের চাহিদা মিটে যায়। অধিকাংশ গ্রাহক চাহিদা মোতাবেক পানি সংরক্ষণ করে রাখে। যাদবপুর গ্রামের জাহাঙ্গীর তরফদার আজাদ বলেন, এই এলাকার মানুষের সুপেয় নিরাপদ পানির খুব অভাব ছিল। এখন আমরা খুব ভাল আছি। আর্সেনিক ও আয়রনমুক্ত পানি পাচ্ছি। মফস্বলে থেকেও শহরের স্বাদ পাচ্ছি।

আজকালের খবর/এএইস



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : হাউস নং ৩৯ (৫ম তলা), রোড নং ১৭/এ, ব্লক: ই, বনানী, ঢাকা-১২১৩।
বিজ্ঞাপন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সার্কুলেশন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮, ই-মেইল : বার্তা- [email protected] বিজ্ঞাপন- [email protected]
দৈনিক আজকালের খবর লিমিটেডের পক্ষে গোলাম মোস্তফা কর্তৃক বাড়ি নং-৫৯, রোড নং-২৭, ব্লক-কে, বনানী, ঢাকা-১২১৩ থেকে প্রকাশিত ও সোনালী প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড (২/১/এ আরামবাগ), ইডেন কমপ্লেক্স, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.com, www.eajkalerkhobor.com