বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪
গৌরীপুর-কলতাপাড়া সড়কে খানাখন্দ: দুর্ভোগ চরমে
মোস্তাফিজুর রহমান বুরহান, গৌরীপুর
প্রকাশ: শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২৩, ৭:১৮ PM
ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা সদরের সঙ্গে জেলা সদরের যোগাযোগের একমাত্র সড়ক গৌরীপুর-কলতাপাড়া সড়ক। সড়কটি বেহালদশার কারণে পার্শ্ববর্তী কেন্দুয়া উপজেলা ও নেত্রকোনা উপজেলার একাংশের জনগণও দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। মাত্র চার কিলোমিটার সড়কের শিক্ষা, সুচিকিৎসা, কৃষি আর ব্যবসা কার্যক্রম মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন এলাকাবাসী।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা প্রকৌশলী অসিত বরণ দেব জানান, গৌরীপুর-কলতাপাড়া সড়কের টেন্ডার হয়ে গেছে। ইতোমধ্যে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলোও টেন্ডার ড্রপিং করেছেন। এখন শুধু ঠিকাদার বাছাই হলেও দ্রুত কার্যাদেশ দিয়ে মেরামত কাজ শুরু করা হবে। 

উপজেলা প্রকৌশল বিভাগ জানায়, ২০২০ সালে মেসার্স ইসতিয়াজ আহমেদ সড়কটির সংস্কার ও মেরামত কাজ করে তিন হাজার ৮৩০ মিটার রাস্তা সংস্কার ও মেরামতে তিন কোটি ২০ লাখ ১৫ হাজার ৪৩৬ টাকা ব্যয় হয়। সংস্কারকালীন সময়ে নিম্নমানের ইটের সুরকি, পাথর-বিটুমিন ব্যবহার ও কাপের্টিং ছাড়াই কাজ করাসহ একাধিক অনিয়ম ও দুর্নীতি নিয়ে একাধিক পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। মেরামতের সময় পুরনো কার্পেটিংয়ের ওপর করা হয়েছে মেকাডমের কাজ। মেকাডমে ১নং ইটের খোয়া ব্যবহার করার বিধান থাকলেও ব্যবহৃত হয়েছে ২নং ও ৩নং ইটের কোয়ার সঙ্গে ইটভাটার রাবিশ। অত্যন্ত নিম্নমানের সুরকি ব্যবহার করার কারণে রোলার দেওয়ার পর এসব সুরকি পাউডারে পরিণত হয়। বাতাসের সঙ্গে উড়ে রাবিশের পাউডার। প্রকল্প এলাকায় প্রকল্পের তথ্যসংবলিত প্রোফাইল প্রজেক্ট সাইনবোর্ড লাগানোর বিধান থাকলেও নির্মাণকাজ শেষ হলেও তা টাঙানো হয়নি। তদারকিতে নিয়োজিত স্থানীয় প্রকৌশল বিভাগকে ম্যানেজ করেই নির্মাণ ও মেরামত কাজে এ অনিয়ম এখন নিয়মে পরিণত হয়েছে। 

অপর একটি সূত্র জানায়, রাস্তাটি নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার পরে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান আরো এক বছর রাস্তাটির তদারকির দায়িত্বে থাকে। এ সময় সিকিউরিটির অর্থ জামানত থাকে প্রকৌশল অধিদপ্তরে। কলতাপাড়ার আবুল হাসিম এ প্রসঙ্গে বলেন, রাস্তাটি মেরামতের মাত্র দু’বছরও যায়নি, ভেঙে তছনছ হয়ে গেছে। একই এলাকার মোজাম্মেল হক জানান, গতবছরও কিছু সুরকি, পাথর ও বিটুমিন দিয়ে গর্তগুলো মেরামত করতে দেখা গেছে। মেরামতের নামে তখন লুটপাট হয়েছে।

এদিকে কলতাপাড়া ডেল্টা মিলস্ ও তাল্লু স্পিনিং মিলের মধ্যকার সড়কে দু’দিকে পানি নিষ্কাশনের কোনো ব্যবস্থা নেই। সামান্য বৃষ্টিতে পুরো সড়কটি জলাশয়ে পরিণত হয়। কলতাপাড়া মোড় থেকে একটু সামনে এগুলো ভাঙা সড়ক তখন যাত্রীদের মহাবিপদে পরিণত হয়। তাঁতকুড়া গ্রামের জয়নাল আবেদিন জানান, প্রতিদিন গর্তে যানবাহন আটকে দুর্ঘটনা শিকার হচ্ছেন যাত্রীরা। প্রতিদিন কমপক্ষে ৮-১০ জন যাত্রী আহত হচ্ছেন। জেলা সদরের সঙ্গে যোগাযোগের একমাত্র সড়কটির এমন দশায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন কেন্দুয়ায় উপজেলার বেখৈরহাটি গ্রামের নওয়াব আলী। তিনি জানান, ছোট বোনকে নিয়ে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে যাচ্ছি। গর্ভবতী বোনের শারীরিক অবস্থা ভালো না। তার চেয়েও খারাপ অবস্থা সড়কের। ঝাঁকিতে গর্ভের সন্তান ও মায়ের মৃত্যুঝুঁকি আরো বাড়িয়ে দিচ্ছে। 

পরিবহন শ্রমিকরা জানান, জেলা সদরে যোগাযোগের জন্য এটিই একমাত্র সড়ক। এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন মালবাহী ট্রাক, যাত্রীবাহী বাস ছাড়াও পিকআপভ্যান, অটোরিকশা, সিএনজি, লেগুনা, ইজিবাইকসহ বিভিন্ন যানবাহন চলাচল করে। এ বছর বর্ষার শুরুতে বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং উঠে গিয়ে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। সিএনজিচালক মোবারক হোসেন জানান, গাড়ি তো চলে হেলে-দুলে, যাত্রীরা চিৎকার ও চেঁচামেচি করেন। রোগীদের নিয়ে এ সড়কে যাওয়া অত্যন্ত কষ্টকর। 

গৌরীপুর উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মজিবুর রহমান ফকির বলেন, সরকারি কোষাগারের অর্থের অপচয় হচ্ছে। সুপরিকল্পিত ও টেকসই উন্নয়ন না হওয়ায় জনগণ বারবার দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। একই সড়ক কেন বারবার ভাঙছে; তা নিরূপণ করে প্রতিরোধ ব্যবস্থাসহ সড়ক সংস্কার ও উন্নয়র করা প্রয়োজন। এতে অর্থ সাশ্রয় ও জনগণের সেবা বেশি পাবে।

আজকালের খবর/ওআর








সর্বশেষ সংবাদ
মার্কিন শ্রমনীতি পোশাক রপ্তানিতে নেতিবাচক অবস্থা তৈরি করতে পারে: পররাষ্ট্র সচিব
স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহজাহান ভূঁইয়ার কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা-হয়রানি
একদিনে দশটি পথসভা, উঠান বৈঠক ও একটি জনসভা করেন সাজ্জাদুল হাসান এমপি
নতুন বছরে সুদহার বাড়ছে
শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা রেখেই আজকের উন্নত বাংলাদেশ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
রাজপথের আন্দোলনে জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা হবে: মুরাদ
অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে অনন্য ভূমিকায় ইসলামী ব্যাংক
ইতিহাসের মহানায়ক: একটি অনন্য প্রকাশনা
নতুন বই বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
এক দিনে সারাদেশে ২১ নেতাকে বহিষ্কার করল বিএনপি
Follow Us
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : হাউস নং ৩৯ (৫ম তলা), রোড নং ১৭/এ, ব্লক: ই, বনানী, ঢাকা-১২১৩।
ফোন: +৮৮-০২-৪৮৮১১৮৩১-৪, বিজ্ঞাপন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সার্কুলেশন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮, ই-মেইল : বার্তা বিভাগ- newsajkalerkhobor@gmail.com বিজ্ঞাপন- addajkalerkhobor@gmail.com
কপিরাইট © আজকালের খবর সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft