ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ  মঙ্গলবার ● ২৬ অক্টোবর ২০২১ ● ১১ কার্তিক ১৪২৮
ই-পেপার  মঙ্গলবার ● ২৬ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম: সুদানে জরুরি অবস্থা জারি       আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দিতে হাইকোর্টের রুল       পুঁজিবাজারে সর্বোচ্চ দরপতন        সাগর-রুনি হত্যার তদন্ত প্রতিবেদন ২৪ নভেম্বর        বিএনপি এখনও পুরোনো ধূসর পথে হাঁটছে        দুর্দান্ত শুরুর পর লিটন সাজঘরে        টস হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ      
রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহর ১৪ নিরাপত্তাকর্মী পলাতক
কক্সবাজার প্রতিনিধি
Published : Tuesday, 12 October, 2021 at 7:33 PM

রোহিঙ্গাদের শীর্ষনেতা মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের পর থেকে তার নিরাপত্তায় থাকা ১৫ জনের মধ্যে ১৪ জনই পলাতক রয়েছেন। আছে শুধু নুরুল আলম। পলাতক ১৪ জনের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনও বন্ধ রয়েছে। যে কারণে হত্যাকাণ্ডের পর থেকেই তাদের কোনো খোঁজখবর নেই বলে জানান তার নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকা নুরুল আলম।

তিনি জানান, মুহিবুল্লাহকে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য ১৫ জনের একটি টিম ছিল। তবে তারা সবাই রোহিঙ্গা। নিরাপত্তা দেওয়ার পাশাপাশি জড়িত ছিল মুহিবুল্লাহর সংগঠনের সঙ্গেও। নিজেদের নেতাকে সুরক্ষিত রাখতে তারা ২৪ ঘণ্টা পাহারা দিতেন। কিন্তু মুহিবুল্লাহ যেদিন খুন হন সেদিন নিজে ছাড়া (নুরুল আলম) বাকি কোনো নিরাপত্তারক্ষী অফিসে আসেনি। 

নুরুল আলমের দাবি, ঘটনার আগে তাদের কাউকে দেখা যায়নি। অথচ অন্য সময় সবাই উপস্থিত থাকত। তাছাড়া ঘটনার পর থেকে তাদের খোঁজও নেই। সেই ১৪ নিরাপত্তারক্ষী হত্যাকাণ্ডে জড়িত কিনা- এমন প্রশ্নে তিনি জানেন না বলে দাবি করেন। তবে হঠাৎ লাপাত্তা হওয়ার কারণে তাদের সন্দেহের চোখে দেখছেন তিনিও।

নুরুল আলমের মতে, মুহিবুল্লাহকে হত্যার পর থেকে তাদের সংগঠন আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের আরও ১০ থেকে ১৫ জনকে হত্যার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে হত্যাকারীরা। তবে হুমকিদাতারা কারা সেই বিষয়ে স্পষ্ট করে তিনি কিছুই বলতে পারছেন না। 

সরেজমিন জানা যায়, মুহিবুল্লাহর বাড়ির সঙ্গে লাগোয়া তার সংগঠন আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের কার্যালয়। যে কার্যালয়ে বসে বাড়ি ফেরার অর্থাৎ মিয়ানমারে প্রত্যাবাসনের স্বপ্ন দেখতেন এবং দেখাতেন তিনি। সেই কার্যালয়ে এখন শুধুই মুহিবুল্লাহর রক্তের দাগ। স্বগোত্রের লোকজনই কেড়ে নিয়েছে মুহিবুল্লাহর প্রাণ, এমন অভিযোগ ও দাবি স্থানীয় সাধারণ রোহিঙ্গাদের। এছাড়া ঘটনার পর থেকে পুলিশ নিরাপত্তা দিয়ে ঘিরে রেখেছে তার বাড়ি এবং অফিস। মামলার তদন্তে নিয়োজিত সংস্থার প্রতিনিধি ছাড়া অন্য কারও সঙ্গে সাক্ষাৎ করছেন না নিহত মুহিবুল্লাহর পরিবার ও নিরাপত্তাকর্মী নুরুল আলম।   

এদিকে গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে নিজের প্রতিষ্ঠিত সংগঠনের অফিসে খুন হন রোহিঙ্গাদের শীর্ষ নেতা মুহিবুল্লাহ। সেই ঘটনায় তার ভাই হাবিবুল্লাহর দায়ের করা মামলায় এখন পর্যন্ত হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে ৫ জনকে আটক করা হয়েছে।

আজকালের খবর/বিএস 


সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : হাউস নং ৩৯ (৫ম তলা), রোড নং ১৭/এ, ব্লক: ই, বনানী, ঢাকা-১২১৩।
ফোন: +৮৮-০২-৪৮৮১১৮৩১-৪, বিজ্ঞাপন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সার্কুলেশন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮
ই-মেইল : বার্তা বিভাগ- [email protected] বিজ্ঞাপন- [email protected]
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.net, www.ajkalerkhobor.com