ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ  বুধবার ● ১৬ জুন ২০২১ ● ২ আষাঢ় ১৪২৮
ই-পেপার   বুধবার ● ১৬ জুন ২০২১
শিরোনাম: পরীমনির বিরুদ্ধে ভাঙচুরের অভিযোগ গুলশান অল কমিউনিটি ক্লাবের, পরিদর্শনে যাবে পুলিশ       বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে স্থায়ী ক্যাম্পাসে নিতে ব্যর্থ মন্ত্রণালয়       বাজেট পাসের পরেই এমপিওর আবেদন       চীনকে এক হাত নিলেন জি-৭ নেতারা, কোভিডের উৎসের তদন্ত দাবি       নেতানিয়াহু যুগের অবসান, নতুন সরকারে থাকছে আরব দলও       ভারতীয় সাংস্কৃতিক সম্পর্ক পরিষদের ভিডিও ব্লগিংয়ে তৃতীয় বাংলাদেশের মনসিফ        ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টাকারীর নাম জানালেন পরীমনি      
মেঘনায় ইলিশের দেখা নেই
দৌলতখান (ভোলা) প্রতিনিধি
Published : Sunday, 6 June, 2021 at 4:58 PM

ভোলার দৌলতখানের মেঘনা নদীতে ভরা মৌসুমেও জেলেদের জালে মিলছে না কাঙ্খিত ইলিশ। সারাদিন নদীতে জাল ফেলে কাঙ্খিত ইলিশ না পেয়ে খালি হাতে অনেক জেলে ঘাটে ফিরছেন। এতে অনেকটা ইলিশ শূন্য হয়ে পড়েছে দৌলতখানের বিভিন্ন মাছঘাটসহ হাট-বাজারগুলোতে। গত বছর এই দিনে ঘাটগুলোতে রাত-দিন হাক-ডাক দিয়ে ইলিশ বেচাকেনায় প্রাণচাঞ্চল্য ছিল ক্রেতা-বিক্রেতার মাঝে। বর্তমানে সেখানে এখন ইলিশ শূন্যতায় বলতে গেলে শুনসান নীরবতা বিরাজ করছে। 

মেঘনায় ইলিশ না থাকায় অনেক জেলে এ পেশা পরিবর্তন করে অন্য কাজে ঝুঁকছেন। জাটকা সংরক্ষণ ও ইলিশের উৎপাদনের লক্ষ্যে মার্চ-এপ্রিল টানা দুই মাস মেঘনা নদীতে সকল ধরণের মাছ ধরা নিষিদ্ধ ছিল। নিষেধাজ্ঞার সময় মাছ ধরার দায়ে অনেক জেলেকে প্রশাসন জেল-জরিমানা করেছে। নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার এক মাসের বেশি সময় পার হলেও এখনও জেলেদের জালে মিলছে না ইলিশ। 

জাটকা নিধনের ফলে ইলিশের আকাল হয়েছে বলে দাবি করেছেন সচেতন মহল। তাদের মতে, প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে কয়েকটি প্রভাশালী চক্র মেঘনা নদীতে অবৈধ চরঘেরা মশারি জাল,বেহুন্দি জাল ও বেড় জাল দিয়ে জাটকা ইলিশ (চাপিলা) শিকার করে আসছে। এর ফলে মাছের আকাল দেখা দিয়েছে। এদিকে এসব অবৈধ জাল বিনষ্ট করতে তৎপর উপজেলা প্রশাসন ও মৎস্য বিভাগ। প্রায় সময় বিভিন্ন মাছঘাট থেকে অভিযান চালিয়ে ওইসব অবৈধ জাল জব্দ করে জনসম্মুখে পুড়িয়ে ধ্বংস করেন প্রশাসন।

রবিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত দৌলতখান উপজেলার পাতারখাল নতুন ও পুরাতন মাছঘাট, রিপন মিয়ার মাছঘাট, ভবানীপুর মাছঘাট, গুপ্তগঞ্জবাজার মাছঘাট, সরকারি দিঘীরপাড় মাছঘাট, মেদুয়া মাছঘাট, চরপাতা মাছঘাটসহ বিভিন্ন ঘাট ঘুরে দেখা যায়, ঘাটে তেমন মাছ নেই বললেই চলে। জেলে ও আড়তদাররা অলস সময় পার করছেন। এসময় মেঘনা নদী থেকে গুটিকয় মাছ শিকার করে বিক্রি করতে আসা বেলাল নামের এক মাঝি আক্ষেপ করে জানান, পাঁচজন শ্রমিক মেঘনায় সকালে ইলিশ শিকার করতে গিয়েছি। মেঘনা নদীতে দুইবার খ্যাও বেয়ে (জাল ফেলে) একটি ইলিশ মাছও পাওয়া যায়নি। তবে ক’টা পোয়া মাছ পেয়েছি। যা ঘাটে এনে ৫২০ টাকা বিক্রি করেছি। এতে নৌকার খরচ পোষানো দুরের কথা, বাকীতে জালানী নিয়ে উল্টো দেনা হয়েছি। সংসার চালাবো কিভাবে বুঝতে পারছিনা।

দৌলতখান পাতারখাল মাছঘাটের আড়তদার ইমাম হাওলাদার জানান, মেঘনায় ইলিশ না থাকায় জেলেদের পাশাপাশি আমাদেরও দুর্দিন কাটছে। সারাদিন ঘাটে থেকেও কোনো আয়-রোজগার নেই। মূলত মেঘনায় পর্যাপ্ত ইলিশ ধরা পড়লেই দৌলতখানের ব্যবসা-বাণিজ্য সচল হয়ে ওঠে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সম্প্রতি উপজেলার একটি ইউনিয়নে জেলেদের মৎস্য ভিজিএফের চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। অনিয়মের বিরুদ্ধে ওইসময় কার্ডধারী জেলেরা চাল না পেয়ে বিক্ষোভ করেছেন। এ সময় বিক্ষুব্ধ জেলেদের তোপের মুখে পড়েন ওই ইউপির চেয়ারম্যান। এ ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সর্বত্র আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে।

দৌলতখান সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মাহাফুজুল হাসনাইন জানান, মেঘনায় ইলিশ আগের চেয়ে একটু কম পড়ছে। এর কয়েকটি কারণ রয়েছে। বেশিরভাগ ইলিশ সমুদ্র থেকে আসে। সমুদ্রে বর্তমানে ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা থাকায় সেখানে ইলিশের অবাধ বিচরণের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। তাছাড়া মেঘনা নদীর পানিতে লবণের পরিমান বেড়ে গেছে এবং দীর্ঘসময় বৃষ্টি ছিলোনা। এর ফলে মিঠা পানির প্রবাহ না থাকায়  মেঘনার ভরা মৌসুমেও ইলিশের আকাল দেখা দিয়েছে। 

এবিষয়ে দৌলতখান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি। 

আজকালের খবর/এএইস


সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : হাউস নং ৩৯ (৫ম তলা), রোড নং ১৭/এ, ব্লক: ই, বনানী, ঢাকা-১২১৩।
ফোন: +৮৮-০২-৪৮৮১১৮৩১-৪, বিজ্ঞাপন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সার্কুলেশন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮
ই-মেইল : বার্তা- [email protected] বিজ্ঞাপন- [email protected]
দৈনিক আজকালের খবর লিমিটেডের পক্ষে গোলাম মোস্তফা কর্তৃক বাড়ি নং-৫৯, রোড নং-২৭, ব্লক-কে, বনানী, ঢাকা-১২১৩ থেকে প্রকাশিত ও সোনালী প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড (২/১/এ আরামবাগ), ইডেন কমপ্লেক্স, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.com, www.eajkalerkhobor.com